আইটিতেই মুক্তি

সুবীর জেভিয়ার নকরেক



আইটি সেক্টরকে একপেশে রেখে এগিয়ে যাওয়ার কোনো বিকল্প নেই। ১ মিনিট ইন্টারনেট নেই ত জীবন নাই নাই এই অবস্থা, যেন কিচ্ছু ভালো লাগেনা। যেহেতু ইন্টারনেট বিহীন জীবন এখন কল্পনাই করা যায় না, তাহলে ক্যারিয়ারটা ইন্টার্নেটভিত্তিক হলে কেমন হয়?

কিন্তু —

এটা যদি শুধু ফেসবুকে খোশগল্পের জন্যই হয় তবে অনেক ভাবনার উদয় ঘটাতে হবে। আইটি সেক্টর এখন সবচেয়ে সম্ভাবনাময় সেক্টর। যারা চাকরীর জন্য হা হুতাশ করেন, তাদের এখনই উপযুক্ত সময় আইটি সেক্টরে দক্ষ হওয়ার।

আমার অনেক বিদেশী ক্লায়েন্ট বলে আপনি যে কাজটা করবেন সেটাতে দক্ষ কিনা?



এ পর্যন্ত প্রায় দুইশত বিদেশী ক্লায়েন্টের সাথে কাজ করেছি, কোনো ক্লায়েন্ট কিংবা বিদেশী জিজ্ঞাসা করেনি আমি কোথায় পড়ালেখা করেছি কি পড়েছি আর কোন প্রতিষ্ঠানে শিখেছি। কর্মক্ষেত্রে আস-লেই আমার আপনার প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার কোন ভেল্যু নেই, সার্টিফিকেটেরও ভেল্যু নেই যদি ইন্টারন্যাশনালি কাজ করেন। ভেল্যু আছে আমার আপনার দক্ষতার।

ইনফ্যাক্ট অনেক বিদেশীরাই বলে, If you know how to design and code, there is no value of your school and university. অর্থাৎ ডিজাইন এবং কোডিং ভালোমতো জানলে পর, স্কুল ইউনিভার্সিটি শিক্ষার দরকার নেই। বর্তমান প্রেক্ষাপটে আরো দরকার নেই।

পূর্বে আমরা চরিত্র গঠনের জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষালাভের উদ্দেশ্যে যেতাম, বিদ্যা লাভের জন্য যেতাম। এখন এমন এমন হচ্ছে যেন ছোটবেলা থেকেই বই এবং ব্যাগ দিয়ে বাচ্চাদের মেরুদন্ড বাকিয়ে জাতিকে ধ্বংস করা আর মুখস্থ করে কিভাবে একটি ভালো চাকরী লাভ করা যায়।



সত্য চরম হলেও এটাই বাস্তবতা যে, বর্তমানে আমাদের শিক্ষাব্যবস্থাটা আমাদের কর্মবাজারের ঠিক উল্টো। পররাস্ট্রবিষয়ক সাবেক রাষ্ট্রদূত ফারুক সোবহান বলেন, বর্তমানে আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থা আর কর্মবাজারের সাথে কোন যোগসূত্রতা নেই, যার জন্য অন্য দেশ থেকে দক্ষ লোক নিয়ে আসতে হয় এবং চড়ামূল্যে তাদের দক্ষতার প্রতিদান দিতে হয়।এরজন্য তিনি অভিভাবক এবং শিক্ষার্থীদেরও দায়ী করেন। কারণ শিক্ষার্থীরা বিকল্প না ভেবে শুধু চাকরী পাওয়াটাকে শিক্ষার উদ্দেশ্য মনে করে, কিন্তু শিক্ষার উদ্দেশ্যই হচ্ছে অভিনব কিছু সৃষ্টি করা।



বর্তমানে সরকারের নেতিবাচক দিক আলোচনা না করে যদি শিক্ষিত যুবরা চাকরীর পেছনে না দৌড়ে আইটিতে মন দিয়ে দক্ষতা অর্জন করে তাহলে তারাই কাজ করবে নির্মানাধীন ১২টি আইটি পার্কে। যদিনা দক্ষ হই আমরা, তবে এই নির্মানাধীন আইটি পার্কেও আবার হায়ার করে আনতে হবে দেশের বাইরের আইটি স্পেশালিস্টদের।

সুতরাং প্রযুক্তির এই আশীর্বাদকে কাজে লাগিয়ে দক্ষ হহওয়াটাই এখন সবচেয়ে বেশি সময়োপযোগী, যুগোপযোগী।

প্রধানমন্ত্রীর সুযোগ্য পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয় এর কথানুসারে, “চাকরীর পেছনে না ছুটে আইটিতে মন দাও।”



Sharing is caring! Please share with friends & family if you find this website useful

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *