অন্ধকারে এক চিলতে আলোর রেখাঃ ‘বৃহত্তর ময়মনসিংহের আদিবাসী সংগঠন সমুহের ঐক্য পরিষদ’

নিজস্ব প্রতিবেদক, ময়মনসিংহ থেকে




১০ ডিসেম্বর, ২০১৭ কারিতাস ময়মনসিংহ আঞ্চলিক কার্যালয়ে বৃহত্তর ময়মনসিংহের আদিবাসী সংগঠন সমুহের ঐক্য পরিষদ গঠন করা হয়েছে বলে জানা গেছে। সেখানে গারো লেখক, কবি, সাহিত্যিক, বুদ্ধিজীবিসহ ১৮ টি সামাজিক, অর্থনৈতিক এবং এনজিও নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বৃহত্তর ময়মনসিংহের ১৮ টি আদিবাসী সংগঠন নিয়ে ঐক্য স্থাপন করেছেন ঐ ১৮ টি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। জানা যায়, বৃহত্তর ময়মনসিংহের আদিবাসীদের অধিকার আদায় ও উন্নয়নে সমন্বিত কাযক্রমগুলো এগিয়ে নিতে কাজ করবে এই ঐক্য পরিষদ।



প্রাথমিকভাবে ১৮ টি সংগঠন যুক্ত হলেও এতে আরও কিছু সংগঠন যোগ দিবে বলে ইতোমধ্যে জানা গেছে। বৃহত্তর ময়মনসিংহের আগ্রহী সংগঠনসমুহ সদস্য হতে পারবে এ ঐক্য পরিষদের।

ঐক্য পরিষদের নেতৃবৃন্দ আশা প্রকাশ করেছেন, তাঁরা সকলের সহযোগিতায় এগিয়ে যাবে ময়মনসিংহের সংগঠন সমুহের এই ঐক্য পরিষদ সংগঠন।




তবে, অনেকের মধ্যে সমালোচনার কথাও শোনা যাচ্ছে ইতোমধ্যেই। ময়মনসিংহ কারিতাস অঞ্চলের আলোক প্রকল্পের সহায়তায় একটি কর্মশালায় গৃহীত এই সিদ্ধান্ত কতটুকু আলোর মুখ দেখবে, এই নিয়ে কথা উঠেছে এরই মধ্যে। এর আগে কারিতাসের এমন উদ্যোগ ‘বৃহত্তর ময়মন্সিংহ আদিবাসী গারো লেখক, কবি, সাহিত্যিক, গবেষক পরিষদ’ মুখ থুবড়ে পড়ে আছে। এটিও যদি এমন হয়, তবে তা হবে আরও গভীর দুঃখের এবং হতাশার। সকল সংগঠনকে একত্র করে কারিতাস সেগুলোকে তার আজ্ঞাবহ করে রাখতে চায় কি না, এমন প্রশ্নও তুলেছেন কেউ কেউ! আবার কেউ কেউ এটাকে স্রেফ এনজিও’র ‘ফান্ড কাজে লাগানো প্রকল্প’ বলেও মনে করছেন।

এমন টি না হোক এমনই হোক প্রত্যাশা।

তবে কবি মিথুন রাকসাম, কবি পরাগ রিছিলেরসহ বেশ কিছু তরুণ লেখকদের অংশগ্রহণকে অনেকেই ইতিবাচক বলে মনে করছেন।

কর্মশালায় কারিতাসের আঞ্চলিক ও কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের কর্তাব্যক্তি ছাড়াও লেখক, বুদ্ধিজীবি সুভাষ জেংচাম, কলামিস্ট ও সংস্কৃতিকর্মী আদিবাসী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীব দ্রং, মধুপুরের আদিবাসী নেতা অজয় এ মৃঃ, জয়েনশাহী আদিবাসী উন্নয়ন পরিষদের সভাপতি ইউজিন নকরেকসহ আরও অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

ফটো ক্রেডিটঃ অপূর্ব রাফায়েল ম্রং, আঞ্চলিক পরিচলক, কারিতাস ময়মনসিংহ অঞ্চল








Sharing is caring! Please share with friends & family if you find this website useful

1 thought on “অন্ধকারে এক চিলতে আলোর রেখাঃ ‘বৃহত্তর ময়মনসিংহের আদিবাসী সংগঠন সমুহের ঐক্য পরিষদ’”

  1. আমি কোন প্রশ্ন করতে এখানে কিছু লিখছি না!

    ১। আলোক প্রকল্পঃ কারিতাস ময়মনসিংহ অঞ্চলের সহায়তায় –
    “বৃহত্তর ময়মনসিংহের আদিবাসী সামাজিক, অর্থনৈতিক, সাংস্কৃতিক, কবি সাহিত্যিক, পেশাজীবী ও ছাত্র সংগঠনসমূহের” সমন্বয়ে গত ১০ ডিসেম্বর তারিখ, কারিতাস ময়মনসিংহ অঞ্চলে একটি সভা হয়ে গেলো জানলাম ‘দ্যা গারোজ টুয়েন্টি ফোর’ মারফৎ।

    ভালো লাগলো। আমিও পেশাজীবীদের একজন ছিলাম।

    ২। মগাগলেক কোন পরিষদ হিসাবে পরিচয় দেয়নি সেদিন (৩১ মে – ১ জুন, ২০১৩)। সেটা ছিল মগাগলেকের সম্মেলন, বৃহত্তর ময়মনসিংহের।
    তাদের নিজেদের বিষয়েই একজনকে বলতে শুনেছি, ওয়েট।
    ওরা নাকি দাঁত ভাঙ্গা জবাব দিবে একদিন।
    জানি না সেদিন কবে হবে।

    ৩। আমি “বৃহত্তর ময়মনসিংহের আদিবাসী সামাজিক, অর্থনৈতিক, সাংস্কৃতিক, কবি সাহিত্যিক, পেশাজীবী ও ছাত্র সংগঠনসমূহের” ১৮ টি সংগঠনের নাম জানতে চাই এবং কারা কারা উপস্থিত ছিলেন তাদের নাম জানতে চাওয়াটাও বোধকরি প্রশ্ন হবে না।

    এবার কয়েকটি ছোট্ট প্রশ্ন –
    আইসিডিপিঃ কারিতাস ময়মনসিংহ অঞ্চলের সহায়তায় –
    গ্রেটার মোমেনশাহীতে একটি অনেক বড় আদিবাসী সংগঠন গড়ানো হয়েছিল। এইবার আলোক প্রকল্পঃ কারিতাস ময়মনসিংহ অঞ্চলের সহায়তায়। চালক কি একজনই?
    আইসিডিপির আদিবাসী সংগঠনটা কি ছিল লোকাল বাসের মতো? আর –
    আলোক প্রকল্পের আদিবাসী সংগঠনটা ডাইরেক্ট বাসের ন্যায়?
    দুই বাসের গন্তব্য কি একটাই ?

    আজ থাক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *